Saturday, July 4, 2020
Click
Home Blog Page 3

পূর্ব প্রস্তুতিতে এবারের ঈদের নাটক !

0

পুরো বিশ্ব এখন স্তব্ধ। সবার একটাই প্রত্যাশা কবে মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পাবে পৃথিবী। এমন সময় সামনে আসছে ঈদ। চলছে রমজান মাস। প্রতিবছর এই সময়টায় বিশ্রাম নেওয়ার সময় পাওয়াটা কষ্টকর হয়ে যায় শোবিজ কর্মীদের। তারকাদের শুটিং ব্যস্ততা, নতুন অনুষ্ঠান নির্মাণ, চ্যানেলগুলোর ঈদ প্রস্তুতি। এমন চিত্র থাকে প্রতিবার। তবে এবার যেন সব অভিজ্ঞতা পাল্টে দিলো সবার। বিশেষ কাজ ছাড়া বের হচ্ছেন না কেউ। নেই কোনো কাজের চাপ। ছিমছাম অবস্থা সবকিছুর।

কিন্তু এরমধ্যেও দেশের চ্যানেলগুলোতে অল্প পরিসরে প্রচার হবে বিভিন্ন নাটক। যেহেতু রোজার ঈদে নাটকে প্রস্তুতি আগে থেকেই নেওয়া হয়, তাই অনেক নাটকই তৈরি প্রচারের জন্য। তবে চ্যানেলগুলো কীভাবে নাটক বা অনুষ্ঠান নিয়ে পরিকল্পনা করেছে তা এখনও জানা যায়নি। তবে তৈরি নাটক বা পুরনো নাটক ও অনুষ্ঠান দিয়েই এবারের চ্যানেলগুলোর অনুষ্ঠানসূচি সাজানো হবে। ছোটপর্দার জনপ্রিয় নির্মাতা ইমরাউল রাফাত ঈদের জন্য ‘ঈদ মোবারক’ শিরোনামে একটি নাটক নির্মাণ করেন। এবার ঈদে তার রচনা ও পরিচালনায় নাটক ‘ঈদ মোবারক’ প্রচার হবে টিভিপর্দায়। এতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম ও নুসরাত ইমরোজ তিশা। ‘ঈদ মোবারক’ নাটকটি আরটিভির ঈদ আয়োজনে প্রচার হবে।

মূলত হাস্যরস যুক্ত গল্প নিয়েই নাটকটি এগিয়ে যাবে। গল্পটি ডাকাতিকে কেন্দ্র করে। সাধারণ ঈদের দিন অনেকের বাসা ফাঁকা থাকে। আর এই সুযোগে এক ডাকাত ঢুকে পড়ে একটি বাসায়। এরপর এগিয়ে যাবে নাটকটির গল্প।

ইমরাউল রাফাত বলেন, ‘করোনায় শুটিং বন্ধ হওয়ার আগে বেশ কয়েকটি নাটকের কাজ করেছিলাম। এর একটি হলো ‘ঈদ মোবারক’। আসন্ন ঈদে এটি প্রচার হবে।’

উল্লেখ্য, প্রায় ১ মাস শুটিং বন্ধ দেশে। সম্প্রতি নাটকের শুটিং বন্ধ রাখার সময় বাড়ানো হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ঠিক কবে আবারও কবে শুরু হবে শুটিং সেটি এখন শুধু অপেক্ষা।

ভারতে গ্যাস দুর্ঘটনায় নিহত ৬

0

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমের এলজি পলিমার ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের রাসায়নিক প্ল্যান্ট থেকে বিষাক্ত গ্যাস নির্গত হয়ে শিশুসহ কমপক্ষে ৬ জন মারা গেছেন । বৃহস্পতিবার এই দুর্ঘটনায় অন্তত ২০০ মানুষ অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএনআই।

ওই কেমিক্যাল প্ল্যান্টের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ওই বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান থেকে একধরণের উদ্ভিদ থেকে নির্গত রাসায়নিক থেকেই ওই বিষাক্ত গ্যাস তৈরি হয়েছে আর সেটিই কোনওভাবে বাইরের বাতাসে মিশে যাওয়াতেই এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি হয়েছে। এতে ওই এলাকার বহু মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

রাসায়নিক প্ল্যান্টটির কর্মকর্তারা আরও জানিয়েছেন, ওই প্লান্ট থেকে যে গ্যাস লিক হচ্ছে তা প্রথম টের পান এলাকার কাছাকাছি থাকা স্থানীয় বাসিন্দারাই।

জানা গেছে, প্লান্টটি মূলত পলিসট্রিন তৈরি করে, যা দিয়ে বিভিন্ন ধরণের প্লাস্টিকের খেলনা এবং অন্যান্য প্লাস্টিকের জিনিস তৈরি করা হয়।

উদ্ধারকারীদের তোলা মোবাইল ভিডিওতে দেখা গেছে ওই এলাকায় কমপক্ষে ১০ জন ব্যক্তি জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে রয়েছেন। এর ফলে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। এনডিটিভি, এনএনআই।

নতুন এমপিওভুক্তিতে ঘুষ চাইলেই মামলা: দুদক চেয়ারম্যান

0

নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্তিতে কোনো প্রকার ঘুষ চাইলেই মামলা করা হবে বলে হুশিয়ার করে দিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনের আলোকে দেশের নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্তির কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

এ প্রেক্ষাপটে নতুন এমপিওভুক্তিতে ব্যাপক দুর্নীতি হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট একাধিক শিক্ষক-কর্মচারী নামে-বেনামে দুদকে এমন অভিযোগ দেয়ার পরই সংস্থাটির চেয়ারম্যান এমন হুশিয়ার দিলেন।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘এক্ষেত্রে কোনো ঘুম দুর্নীতি সহ্য করা হবে না।’

মঙ্গলবার দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞাপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দুদকে আসা বিভিন্ন অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে যে, কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষার নামে কোনো কোনো উপজেলা শিক্ষা অফিস, জেলা শিক্ষা অফিস এবং আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসসমূহের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী অনৈতিকভাবে অর্থ দাবি করছেন। আর ইতিমধ্যে কমিশনের গোয়েন্দা অনুবিভাগ এসব অভিযোগ কমিশনকে অবহিত করেছেন।

এ প্রেক্ষাপটে ইকবাল মাহমুদ দুদকের গোয়েন্দা অনুবিভাগ, সকল সমন্বিত জেলা কার্যালয় (সজেকা) এবং বিভাগীয় কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের তাৎক্ষণিক এক বার্তায় নির্দেশনা দিয়েছেন।

দুদক চেয়ারম্যান বলেছেন, ‘শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্তিকরণে কোনো প্রকার দুর্নীতি-অনিয়ম-হয়রানি কমিশন সহ্য করবে না। দুদকের জেলা কার্যালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ ও বিভাগীয় কার্যালয়ের কর্মকর্তাগণ এই এমপিওভুক্তিকরণ কার্যক্রম নিবিড়ভাবে নজরদারি করবেন।’

তিনি বলেন, ‘কোনো অবস্থাতেই কোনো অযোগ্য শিক্ষক যেন ঘুষ প্রদানের মাধ্যমে এমপিওভুক্ত হতে না পারেন। আবার কোনো যোগ্য শিক্ষক-কর্মচারীর কাছ থেকে সংশ্লিষ্ট অফিসের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী যাচাই-বাছাইয়ের নামে ঘুষ গ্রহণ করার সুযোগও যেন না পায়।’

ইকবাল মাহমুদ আরও বলেন, ‘এ কার্যক্রম এমনভাবে মনিটরিং করতে হবে, যাতে কারো পক্ষে ঘুষ দেয়া এবং ঘুষ নেয়ার সুযোগ না থাকে। প্রয়োজনে ফাঁদ মামলা পরিচালনা করে অপরাধীদের আইন-আমলে নিয়ে আসতে হবে।’

‘এক্ষেত্রে দুর্নীতি দমন আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। সবাইকে মনে রাখতে হবে ঘুষ নেয়া যেমন ফৌজদারি অপরাধ, তেমনি ঘুষ দেয়াও একই জাতীয় (সমান) অপরাধ। এ অপরাধে যারাই সম্পৃক্ত হবেন তাদেরকে আইনের মুখোমুখি করা হবে।’

রোজার মাসে সহযোগিতা বাড়ানো নিয়ে সমিতির আলাদা পরিকল্পনা রয়েছে

0

করোনার এই সময়টা সব তারকার ঘরে বসেই সময় কাটছে। তবুও বিভিন্ন দায়িত্বের কারণে বের হতে হয় ঘর থেকেও। অনেকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসছেন। চলচ্চিত্রের শিল্পী ও কলাকুশলীরা সমিতির মাধ্যমে ও অন্যান্য মাধ্যমে সহযোগিতা পাচ্ছেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর সমিতির মাধ্যমে শুরু থেকে বিভিন্ন কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত আছেন। এরমধ্যে রয়েছে শিল্পীদের সহযোগিতা করা এবং অসুস্থ শিল্পীদের পাশে দাঁড়ানো। তিনি সব কার্যক্রম সমিতির মাধ্যমে চালাচ্ছেন।

মিশা সওদাগর বলেন, ‘আমাদের ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা কারও অজানা নয়। স্বাভাবিক সময়েই অনেকে অস্বচ্ছল জীবনযাপন করতেন। আর এমন সঙ্কটে তাদের সমস্যাটা আরও বেশি হয়েছে সেটি বলার অপেক্ষা রাখে না। সংগঠন ও ব্যক্তি দায়িত্ব থেকে আমরা অনেকে এগিয়ে এসেছি। আমাদের প্রচেষ্টা কম ছিল না।

তিনি আরও বলেন, এ নিয়ে সমালোচনাও শুনেছি। কিন্তু যা মানুষের জন্য ভালো তা আমি করে যেতে চাই। আর এই সময় কান কথা না শুনে মানুষের উপকার কীভাবে হয় সেই চিন্তা করাই ভালো। রোজা চলছে। এই সময়টা আমাদের খরচের হার অনেকটা বেড়ে যায়। তাই রোজার মাসে সহযোগিতা বাড়ানো নিয়ে সমিতির আলাদা পরিকল্পনা রয়েছে। আশা করি সবার পাশে থাকতে পারবো।’

করোনায় আক্রান্ত ঢাবির আরও এক শিক্ষার্থী

0

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থীর শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। রবিবার করোনা পজেটিভের বিষয়টি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) থেকে মুঠোফোনে মেসেজ পাঠিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে নিশ্চিত করা হয়েছে। তাকে আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে করোনায় আক্রান্ত জানিয়ে সবার কাছে দোয়া চান ওই শিক্ষার্থী। আক্রান্ত শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষে অধ্যয়নরত।

ফেসবুকে তিনি বলেন, ‘আমার করোনা পজিটিভ। ঢাকার একটি হাসপাতালে আইসোলেশনে আছি। শরীর এখনো ফিট আছে।’

বর্তমানে তিনি দেশ রূপান্তর পত্রিকায় সাব-এডিটর পদে কর্মরত। পত্রিকাটির সহায়তায় তাকে রাজধানীর রিজেন্ট হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এসব তথ্য ওই শিক্ষার্থী নিজেই জানিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ডা. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘ওই শিক্ষার্থীর আক্রান্তের বিষয়টি জানতে পেরেছি। এ পর্যন্ত আমাদের চারজন শিক্ষার্থী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তবে বাকি তিনজন এখন সুস্থ হয়েছেন।’

লকডাউন শিথিলের দিকে বিভিন্ন দেশ

0

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর লকডাউন জারি করা হয়েছে বিশ্ব জুড়ে। এতে সংকটে পড়েছে অর্থনীতি। এরপর ‘জীবন না জীবিকা কোনটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ’ এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সবার মধ্যে। ফলে করোনার প্রকোপ বাড়লেও লকডাউন তুলতে শুরু করেছে বিভিন্ন দেশ। বিশেষ করে আমেরিকায় লকডাউন না তোলা হলেও মানুষ ঘরের বাইরে বেরিয়ে পড়েছে। অথচ দেশটিতেই সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ঘটেছে। ব্রিটেনে লকডাউন শিথিল না হলেও কিছু স্থানে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। তবে জাপানে জরুরি অবস্থার মেয়াদ বেড়েছে।

লকডাউন তোলা নিয়ে গোটা বিশ্ব যখন দোলাচলে তখন করোনা সংক্রমণ হয়েছে প্রায় ৩৬ লাখ মানুষের মধ্যে। ওয়ার্ল্ডো মিটারের পরিসংখ্যান বলছে, গতকাল মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫ লাখ ৯১ হাজার ৭০৩। মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৪৯ হাজারের বেশি মানুষের। সুস্থ হয়েছেন ১১ লাখ ৬৫ হাজার ৮৭৮ জন। কিন্তু চিকিৎসক এবং বিজ্ঞানীদের অনেকেই বলছেন, যেসব দেশে করোনা পরিস্থিতি সামান্য ভালো হয়েছে, সেখানে ফের ফিরে আসতে পারে এই মরণব্যাধি। সম্প্রতি আফগানিস্তানে এক জরিপের রিপোর্ট বলছে, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে রাজধানী কাবুলের এক তৃতীয়াংশ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হবেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও আগেভাগে লকডাউন শিথিল নিয়ে সতর্ক করেছিল।

সংক্রমণ বাড়লেও ঘরের বাইরে আমেরিকানরা: গতকাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত ১১ লাখ ৮৯ হাজার ২৪ জন। মারা গেছে ৬৮ হাজার ৬০৯ জন। সংক্রমণের হার এখনো কমেনি। কিন্তু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জানিয়েছেন, লকডাউন তুলে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। বস্তুত রবিবার থেকেই দেশের জনগণ রাস্তায় বের হতে শুরু করেছেন। বিক্ষোভে মাস্ক ছাড়াই অংশ নিচ্ছেন অনেকে।

নিউ ইয়র্কের মতো করোনাপ্রবণ জায়গায় রবিবার রৌদ্রস্নান করতেও বেরিয়ে পড়েছিল মানুষ। এ নিয়ে চিন্তিত হোয়াইট হাউজে করোনা টাস্ক ফোর্সের সমন্বয়ক ডেবোরা বার্ক্স। তিনি বলেছেন, এভাবে জনগণ রাস্তায় বের হলে সংক্রমণ কয়েকগুণ বেড়ে যাবে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য জানিয়েছেন, অর্থনীতি সচল রাখতে লকডাউন তুলতেই হবে। তবে কোথায় কীভাবে লকডাউন তোলা হবে, তার সিদ্ধান্ত নেবেন রাজ্যের গভর্নররা। যুক্তরাষ্ট্রে অর্ধেকের বেশি রাজ্যে লকডাউন শিথিল হয়েছে।

আরো অনেক দেশে লকডাউন শিথিল শুরু: দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে লোকজন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে ঘরে থাকার পর গতকাল সকাল থেকে ইতালিতে সরকার লকডাউনের বিধিনিষেধ ধীরে ধীরে তুলে নিতে শুরু করেছে। এই দেশটিতেই সর্বপ্রথম লোকজনকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

একসময় করোনা ভাইরাস মহামারির কেন্দ্র হয়ে উঠেছিল এই ইতালি। প্রধানমন্ত্রী জোসেপে কন্টি বলেছেন, লকডাউন পুরোপুরি তুলে নেওয়ার বিষয়টি নির্ভর করবে সংক্রমণের গতি-প্রকৃতির ওপর। তবে তিনি সতর্ক করেছেন, বিধিনিষেধ শিথিল করাকে যেন ‘আমরা করোনা ভাইরাস থেকে পুরোপুরি মুক্ত’ সেভাবে দেখা না হয়।

ব্রিটেনে সংক্রমণ এবং মৃত্যু দুইটাই বাড়ছে। দেশটিতে আক্রান্ত ১ লাখ ৮৬ হাজার ৬০০ এবং প্রাণ গেছে ২৮ হাজার ৪৪৬ জনের। এজন্য সরকার লকডাউনও শিথিল করেনি। কিন্তু লন্ডনসহ কয়েকটি শহরে গাড়ি চলাচল বেড়েছে। গাড়ি চলাচল ২ শতাংশ থেকে ১৩ শতাংশ বেড়েছে। কোথাও কোথাও যানজটও দেখা গেছে।

স্পেনে সাত সপ্তাহের মধ্যে এই প্রথম বয়স্করাও হাঁটাহাঁটি করতে বাইরে বের হতে পারছেন। ফ্রান্সও আগামী সপ্তাহে লকডাউন তুলে নেবে। ১১ মে থেকে ফ্রান্সে বাচ্চারা স্কুলে যেতে পারবে পর্যায়ক্রমে। কোথাও কোথাও কিছু বাণিজ্য চালু হবে। পর্তুগালে ছয় সপ্তাহ ধরে চলছিল জরুরি অবস্থা। দেশটি এখন তিন ধাপে অচলাবস্থা নিরসনের পরিকল্পনা করেছে।

লকডাউন নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে অস্ট্রেলিয়ায়। সেখানে স্কুল-কলেজ খোলার প্রস্তুতি শুরু করেছে সরকার। বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, স্কুল-কলেজ খুলে দিলে নতুন করে করোনা সংক্রমণের পরিস্থিতি তৈরি হবে। জার্মানিতেও স্কুল-কলেজ খোলার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এছাড়া ডেনমার্ক, নরওয়ে, চেক রিপাবলিক, পোল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড, আলবেনিয়া, গ্রিস, দক্ষিণ আফ্রিকা ও নাইজেরিয়াসহ আরো কিছু দেশ লকডাউন শিথিল করেছে।

থাইল্যান্ডে খুলে দেওয়া হয়েছে কিছু খাবার দোকান ও পাব। হংকং সরকার কিছু কিছু কর্মক্ষেত্র খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জর্ডানে অর্থনৈতিক কার্যক্রমে বাধা নেই। তিউনিশিয়ায় খুলে দেওয়া হচ্ছে ক্ষুদ্র ও বৃহৎ শিল্প। মিসরে অভ্যন্তরীণদের জন্য হোটেল খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে সেখানে সর্বোচ্চ সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে ২৫ শতাংশ। ইরানে অনেক শহরে মসজিদ খুলে দেওয়া হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ায় স্কুলও খোলার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

জাপানে জরুরি অবস্থার মেয়াদ বৃদ্ধি: জাপানে জরুরি অবস্থার মেয়াদ মে মাসের শেষ দিন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। গতকাল সরকারের এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। দেশটি করোনা ভাইরাসের বড়ো ধরনের প্রকোপ এড়াতে সক্ষম হলেও শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার মানুষ। মারা গেছে প্রায় ৫০০ জন। জরুরি অবস্থা বুধবারেই শেষ হওয়ার কথা ছিল।—ডয়চেভেলে, বিবিসি ও আলজাজিরা

১০ মে থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে শপিংমল

0

রোজার ঈদকে সামনে রেখে আগামী ১০ মে থেকে দেশের সব দোকান-পাট ও শপিং মল খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার। বেশ কয়েকটি শর্ত মেনে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সারা দেশের শপিং মলগুলো খোলা রাখা যাবে জানিয়ে জননিরাপত্তা বিভাগ, সুরক্ষা সেবা বিভাগ ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং সব বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকদের সোমবার নির্দেশনা পাঠিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্ম-সচিব (জেলা ও মাঠ প্রশাসন অধিশাখা) মো. মুশফিকুর রহমান বলেন, ‘আগের আদেশে বিকাল ৫টা পর্যন্ত শপিংমল খোলা রাখার কথা বলা হলেও সেটা বিকাল ৪টা পর্যন্ত করা হয়েছে।’

সারা দেশে হাট-বাজার, ব্যবসা কেন্দ্র, দোকানপাট ও শপিং মলগুলো সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টার মধ্যে সীমিত পরিসরে খোলা রাখা যাবে বলে জানান তিনি। তবে সারাদেশে শপিংমল খোলা রাখার ব্যাপারে নিন্মলিখিত শর্তগুলো মানতে হবে ব্যবসায়ীদের।

১. বড় শপিং মলের প্রবেশমুখে হাত ধোঁয়ার ব্যবস্থা ও স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে।

২. শপিং মলে আসা যানবাহনকে অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

৩. বেচাকেনার সময় ক্রেতা-বিক্রেতাদের পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।

৪. দোকানপাট এবং শপিং মল বিকাল ৪টার মধ্যে অবশ্যই বন্ধ করতে হবে।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষাপটে সরকার প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সব অফিস আদালত বন্ধ ঘোষণা করে। সেই সঙ্গে সারা দেশে সব ধরনের যানবাহন চলাচলেও নিষেধাজ্ঞা জারি হয়, শপিং মলও বন্ধ রাখতে বলা হয়।

সেই ছুটির মেয়াদ ইতোমধ্যে ১৬ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার। এতদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়ায় নিষেধাজ্ঞা ছিল। এখন তা দুই ঘণ্টা শিথিল করা হয়েছে।

আদেশে বলা হয়েছে, ‘জরুরি প্রয়োজন ছাড়া রাত ৮টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে আসা যাবে না’

হুমায়ূন আহমেদের ‘দখিন হাওয়ায়’ আগুন

0

কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের বাড়ি ‘দখিন হাওয়ায়’ আগুন লাগার খবর পাওয়া গেছে। রবিবার সকালে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। এছাড়া বাসায় কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

প্রয়াত এই লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন সংবাদমাধ্যমকে জানান, সকালে ছয় তলা ভবনের তৃতীয় তলায় আগুন লাগে। সিঁড়িতে ধোঁয়া থাকায় নিচে নামতে পারছিলেন না। তাই তারা ছাদে উঠে যান। এখন নিরাপদে আছেন।

ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ সূত্রে জানা যায়, ওই ভবনের তৃতীয় তলার একটি কক্ষে বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি যাওয়ার আগেই আগুন নিভে যায়। ভবনের ষষ্ঠ তলায় থাকেন শাওন।

নারীর খৎনাকে অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করলো সুদান !

0

আফ্রিকার দেশ সুদানে নারীর খৎনাকে অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এখন থেকে নারীকে খৎনা করানো হলে তিন বছরের কারাদণ্ড ও জরিমানার আদায় করা হবে জানিয়েছে সুদান সরকার। এদিকে সুদান সরকারের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে নারী অধিকার নিয়ে কাজ করা আফ্রিকার সংগঠনগুলো।

জাতিসংঘের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, সুদানে ১০ জনের মধ্যে ৯ জন নারীকেই খৎনা করানো হয়। জানা গেছে, গত ২২ এপ্রিল সুদান সরকার নারীদের খৎনা নিয়ে আইন সংশোধন করে শাস্তির বিধানে অনুমোদন দেয়।

এ বিষয়ে মানবাধিকার সংস্থা ইকুয়ালিটি নাউ’র আফ্রিকা অঞ্চলের পরিচালক ফাইজা মোহামেদ বলেন, বিশ্বে সবচেয়ে বেশি নারী খৎনা সুদানে হয়। নারীদেরকে এই নির্যাতন থেকে রক্ষার জন্য শাস্তি দিতে হবে। জাতিসংঘের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, আফ্রিকা এবং মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে প্রায় ২০ কোটি নারীকে খৎনা করানো হয়েছে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, খৎনা করানো হলে নারীদের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। এছাড়াও খৎনার কারণে নারীরা বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগতে পারেন ।

করোনায় জীবন দিলেন আরো এক পুলিশ সদস্য

0

করোনা প্রতিরোধের সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ দিলেন আরো এক পুলিশ সদস্য। দেশের সেবায় ও জনগণের কল্যাণে জীবন উৎসর্গকারী এ পুলিশ সদস্য হলেন এসআই নাজির উদ্দীন। তিনি পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের প্ররক্ষা শাখায় কর্মরত ছিলেন।

জানা যায়, গত ২৫ এপ্রিল নাজির উদ্দীনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। তিনি রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

এসআই নাজিরের গ্রামের বাড়ি পাবনা জেলার ভাংগুরা থানার কাজিটোলা গ্রামে। তার নামাজে জানাজা আজ সকালে রাজারবাগে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজা শেষে পুলিশের ব্যবস্থাপনায় মরদেহ মরহুমের গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হয়েছে। সেখানে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতিতে ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী মরদেহ দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, এ নিয়ে বাংলাদেশ পুলিশের চার সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করলেন।

Banglatimes64.com

Editors By: Shamim Ahmed Joy