Saturday, July 4, 2020
Click
Home Blog Page 58

শহীদ মিনারে জুতা পায়ে ছাত্রদল, নিষেধ করতেই হামলার শিকার পুলিশ

0

জুতা পায়ে দিয়েই শহীদ মিনারে উঠে যায় ছাত্রদল নেতাকর্মীরা। আর এতে নিষেধ করায় পুলিশের ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বগুড়ার এ ঘটনায় পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। হামলার অভিযোগে ১১ ছাত্রদলকর্মীকে আটক করেছে বগুড়া সদর থানা পুলিশ। বুধবার (১ জানুয়ারি) ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের নেতাকর্মীরা বুধবার সকাল থেকে বগুড়া শহরের শহীদ খোকন পার্কে সমবেত হতে থাকে।

এ সময় বিভিন্ন এলাকা থেকে এসে সেখানে সমবেত হয়ে মিছিল নিয়ে নবাববাড়ি সড়কে অবস্থিত জেলা ছাত্রদলের কার্যালয়ে গিয়ে কর্মসূচিতে মিলিত হওয়ার কথা ছিল তাদের। বেলা ১১টার সময় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা জুতা-স্যান্ডেল পায়ে নিয়েই জেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বেদিতে উঠে শ্লোগান দিতে থাকে। ওই সময়ে সেখানে থাকা কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যরা তাদেরকে জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে উঠতে নিষেধ করেন। নিষেধ করায় পুলিশের সাথে বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে তারা প্লাকার্ডের লাঠি ও ইট-পাটকেল দিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী, এএসআই আশরাফুল ইসলাম, কন্সটেবল পারভেজসহ পাঁচজন আহত হন। তাদের মধ্যে কন্সটেবল পারভেজকে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার বিবৃতি দিয়ে বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, শহীদ মিনারে জুতা-স্যান্ডেল পায়ে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা উঠে শ্লোগান দিচ্ছিল। এসময় তাদের নিষেধ করলে তারা হঠাৎ করে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে তিনি নিজেসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হন। আহত পুলিশ সদস্য পারভেজ বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানান তিনি। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। তিনি বলেন, হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং ১১ জনকে আটক করা হয়েছে। মামলার স্বার্থে তাদের নাম এখনই বলা যাচ্ছে না। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। কিন্তু বগুড়া জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু হাসান ও সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকী রিগ্যান এ অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তাদের কর্মসূচি ছিল নবাববাড়ি সড়কের দলীয় কার্যালয়ের সামনে। সেখানে তারা অবস্থান করছিল। নেতাকর্মীরা শহীদ মিনারে জড়ো হয়েছিল মাত্র। সেখানে পুলিশের সাথে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়েছে, হামলার কোন ঘটনা ঘটেনি। এদিকে বগুড়া সদর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান জানান, পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে ছাত্রদলের ১১ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

বহিষ্কৃত সেই ছাত্রলীগ নেত্রীকে বিয়ে করছেন সোহাগ

0

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইশরাত জাহান এশার সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন ছাত্রলীগের তৎকালীন কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। কোটা সংস্কার আন্দোলন চলাকালে আলোচিত এই নেত্রী রগ কাটার অভিযোগে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার হন। গতকাল মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) বিয়ের বিষয় নিয়ে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সোহাগ ও এশার পরিবারের সদস্যরা। এরপর দুই পরিবারের একইসাথে একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে সোহাগ।

সোহাগ ওই ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘আমার অভিভাবক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমাদের বিয়ের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ঠিক করে দিয়েছেন। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন। সবাইকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা। Happy New year-2020।’  উল্লেখ্য, কোটা সংস্কারের দাবিতে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের টানা আন্দোলনের চলাকালে ২০১৮ সালের ১১ এপ্রিল মধ্যরাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলে এক ছাত্রীর রগ কেটে দেওয়ার গুজব ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। ওই সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলের মোর্শেদা নামের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের এক ছাত্রীর রক্তাক্ত পায়ের ছবিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে। ওই ছবির সঙ্গে গুজব ছড়িয়ে পড়ে যে হলের মেয়েদের রগ কেটে দিয়েছেন তিনি ছাত্রলীগ নেত্রী এশা। এই গুজবের ওপর ভিত্তি করে হলের মেয়েরা তাঁকে অবরুদ্ধ করে ফেলেন। এরপর ছাত্রীরা এশাকে মারধর করেন এবং জুতার মালা পরিয়ে লাঞ্ছিত করেন।

খবর পাওয়ার সাথে সাথেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী ওই হলে গিয়ে এশাকে বহিষ্কারের ঘোষণা দেন। ওই রাতেই ছাত্রলীগ এক তদন্ত কমিটি গঠনসহ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এশাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কারের ঘোষণা দিয়ে গণমাধ্যমে বিবৃতি পাঠান। পরে জানা যায়, মোর্শেদার পা কেউ কাটেনি, বরং এশার কক্ষের জানালার কাচে লাথি মারতে গিয়ে তাঁর পা কেটে যায়। এরপর ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা এশার সঙ্গে দেখা করেন এবং তাঁর সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও গণমাধ্যমে কথা বলেছেন। এর পরবর্তী সময়ে এশার বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও ছাত্রলীগ। ঘটনা তদন্তের দায়িত্বে থাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আবিদ আল হাসান ওই সময় সংবাদ সম্মেলনে করে বলেন, সেই রাতে পরিস্থিতিটাই তখন এমন ছিল যে তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য এশাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল।

সময়ের প্রয়োজনে অশ্লীল সিনেমা করেছি, কে কী বলল ভাবার সময় নেই: পলি

0

অভিনয় ছাড়লেও সিনেমার সঙ্গ ছাড়েন নি একসময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পলি। বাংলাদেশে সিনেমার অশ্লীল যুগের শুরু হয় পলির হাত ধরেই। অভিনয় ছেড়ে এখন গুলশানে বসবাস করেন তিনি। সেখান থেকে বাংলাদেশ ফিল্ম ক্লাবের নির্বাচনে ভোট দিতে এসে নিজের অতীত নিয়ে কথা বললেন পলি। তিনি বলেন, সময়ের প্রয়োজনে অশ্লীল সিনেমা করেছি। তখন হলগুলো বেঁচে ছিল এর উপর নির্ভর করেই। সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) ছিল বাংলাদেশ ফিল্ম ক্লাব লিমিটেডের নির্বাচন, সেখানেই এসব কথা বলেন তিনি।

পলি বলেন, দেশের জনপ্রিয় নায়কদের সঙ্গে সিনেমায় অভিনয় করেছি। নায়ক মান্না ভাই থেকে শুরু করে, রুবেল শাকিব খান, আমিন খান, অমিত হাসানদের সঙ্গে কাজ করেছি। এখন চলচ্চিত্রের সময় খারাপ যাচ্ছে। আর যে কেউ প্রস্তাব দিলে তাদের সিনেমায় কাজ করছি না। অনেকেই আপনাকে অশ্লীল ছবির নায়িকা হিসেবে চেনেন, বিষয়টি আপনি কিভাবে দেখছেন? – জানতে চাইলে পলি বলেন, ‘যখন অশ্লীল ছবি করেছি ওগুলো ছিল সময়ের প্রয়োজনে। ওই সময় হলগুলো অশ্লীল সিনেমায় বেঁচে ছিল। এখন আর সেই দিন নেই। সবকিছুর পরিবর্তন এসেছে। কে কি বললো তা নিয়ে আমার কিছু বলার বা ভাবার সময় নেই।

নির্বাচনে জনগণ সমর্থন না জানালে আমরা সরকারে থাকব না

0

হঠাৎ করে সরকারের পতন হবে-বিএনপি নেত্রী সেলিমা রহমানের এমন বক্তব্যের প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সেলিমা রহমান তথা বিএনপির মুখে নানান ধরনের কথা আমরা গত ১১ বছর ধরে শুনে আসছি। সরকারের পতন করার একটি পথ, সেটি হচ্ছে নির্বাচনের মাধ্যমে। যখন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে তখন জনগণ যদি আমাদেরকে সমর্থন না জানায় তাহলে স্বাভাবিকভাবেই আমরা সরকারে থাকব না।

তিনি বলেন, অন্য কোন পথ নেই যে পথে সরকার পতন করানো যাবে। যদিও বিএনপি সরকার পতনের জন্য নানা পথকে বিশ্বাস করে। তারা রাজনৈতিকভাবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনাকে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে তারা নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। সেলিমা রহমানের এই বক্তব্য ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছু নয়। বুধবার (১ জানুয়ারি) সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রণালয়ের গেল এক বছরের নানা অর্জন নিয়ে আলাপচারিতায় সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশ অতীতের মতো আর কোনো ষড়যন্ত্র সফল হবে না। আর সরকারকে বিদায় দেওয়ার একটি মাত্র পথ সেটি হচ্ছে নির্বাচনের মাধ্যমে আসতে হবে। নচেৎ অন্য কোন পথ এখানে প্রয়োগের সুযোগ নেই। অনলাইন গণমাধ্যম নিবন্ধনের বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, আমরা সবকিছুই মোটামুটি চূড়ান্ত করেছি। তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে আমরা সব গুলো রিপোর্ট পাইনি। সেটা পেলেই নিবন্ধন দেওয়া শুরু হবে।

পর পর ২ বার ফেল করায় জেএসসি ছাত্রীর আত্মহত্যা !

0

শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলায় জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় ফেল করায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে ফাতেমা আক্তার (১৪) নামে এক পরীক্ষার্থী।

মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুর ২টার দিকে নিজ বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে। সদ্য প্রকাশিত জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় অংকে ফেল করায় আত্মহত্যা করল ফাতেমা।

ফাতেমা আক্তার উপজেলার ইদিলপুর ইউনিয়নের মিত্রসেনপট্টি গ্রামের মোস্তফা খাঁ ও নাজমা বেগম দম্পতির মেয়ে। এবার ইদিলপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিল সে। জেএসসি পরীক্ষায় তার রোল নম্বর ছিল ৪০৫৪৩৯। মঙ্গলবার প্রকাশিত ফলাফলে অংক বিষয়ে ফেল করে ফাতেমা।

ফাতেমার বাবা মোস্তফা খাঁ বলেন, আমার তিন মেয়ে। ফাতেমা বড় মেয়ে। শুধুমাত্র একটি বিষয়ে ফেল করায় আমার আদরের মেয়েটা আত্মহত্যা করল। আমরা কেউ তাকে কিছুই বলিনি।

এ বিষয়ে গোসাইরহাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিম রেজা বলেন, স্কুলছাত্রী ফাতেমার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সে গত বছরও জেএসসিতে একই বিষয়ে ফেল করেছিল। এ বছর একই বিষয়ে ফেল করল সে।

বাণিজ্য মেলায় টিকিটের দাম বাড়ল ১০ টাকা !

0
কাল শুরু হচ্ছে বাণিজ্য মেলা, টিকিটের দাম বেড়েছে ১০ টাকা

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় (ডিআইটিএফ) প্রবেশে টিকিটের দাম গত বছরের চেয়ে এ বছর ১০ টাকা বাড়ানো হয়েছে। গত বছর মেলায় প্রবেশের জন্য প্রাপ্তবয়স্কদের টিকিটের দাম ছিল ৩০ টাকা। এবার সেই টিকিটের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৪০ টাকা। এছাড়া অপ্রাপ্তবয়স্কদের টিকিটের দাম আগের মতোই ২০ টাকা রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বাণিজ্য মেলার মাঠে এক সংবাদ সম্মেলনে টিকিটের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

এবিষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আগে এক কাপ চা খেতেন তিন টাকায়, এখন পাঁচ টাকা লাগে। মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়েছে। এছাড়া মেলায় এবার স্টলের সংখ্যা কমেছে। সব বিষয় মাথায় রেখে এবার টিকিটের নতুন এই মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আগামীকাল বুধবার (১ জানুয়ারি) থেকে শুরু হওয়া মাসব্যাপী এ মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারের মেলায় বাংলাদেশসহ ২১টি দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৪৮৩টি প্যাভিলিয়ন ও স্টল থাকবে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মেলা খোলা থাকবে। এবারের মেলায় প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন রাখা হয়েছে ৬৪টি। এছাড়া সাধারণ প্যাভিলিয়ন ১৩টি, সাধারণ মিনি প্যাভিলিয়ন ৫৯টি ও প্রিমিয়াম মিনি প্যাভিলিয়ন ৪২টি।

Banglatimes64.com

Editors By: Shamim Ahmed Joy